সাংবাদিক নিয়োগঃ
আজকের নোয়াখালী শিক্ষানবীশ সাংবাদিক নিয়োগ - আগ্রহীরা সিভি পাঠিয়ে দিন আমাদের মেইলঃ ajkernoakhali2019@gmail.com এ
নোয়াখালীতে ছাত্রলীগ কর্মী হত্যার বিচারের দাবিতে পরিবারের সংবাদ সম্মেলন

নোয়াখালীতে ছাত্রলীগ কর্মী হত্যার বিচারের দাবিতে পরিবারের সংবাদ সম্মেলন

আজকের নোয়াখালী, নিজস্ব প্রতিনিধি:

নোয়াখালী পৌরসভার সোনাপুর মহব্বতপুর গ্রামে সন্ত্রাসী হামলায় আহত ছাত্রলীগ কর্মী আবুল কালাম শুভ (২২) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেছেন। এ ঘটনার প্রতিবাদ ও হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে।

বুধবার (২৫ মার্চ) দুপুরে মহব্বতপুর নিজ বাড়িতে এ সংবাদ সম্মেলন করেন নিহতের পরিবারের লোকজন। নিহত আবুল কালাম শুভ মহব্বতপুর গ্রামের মৃত আকরাম উদ্দিনের ছেলে। তিনি সোনাপুর ডিগ্রি কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র। তিনি ওই কলেজ শাখা ছাত্রলীগের একজন সক্রিয় কর্মী ছিলেন।

 

গতকাল মঙ্গলবার (২৪ মার্চ) রাত সাড়ে ৯টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুভ মারা যান।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে নিহতের বড় ভাই রুবেল হোসেন বলেন, গত ২২ মার্চ (রবিবার) রাত ১০টায় মহাব্বতপুর গ্রামের কাঞ্চন মেম্বারের পুল (লিংক রোড) দিয়ে বাড়িতে ফিরছিল শুভ। পথে স্থানীয় সন্ত্রাসী আব্দুর জাহের প্রকাশ পাকশী হারুন, ফরহাদ, বুলবুল, অপু, সোহেল, অন্তর ও শাকিলসহ কয়েকজন শুভর চোখে মরিচের গুড়া নিক্ষেপ করে। পরে ওই সন্ত্রাসীরা রামদা ও চাইনিজ কুড়াল দিয়ে শুভকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে। আহত অবস্থায় স্থানীয় লোকজন শুভকে উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে।

ওই রাতেই তার অবস্থা অবনতি হলে চিকিৎসকের পরামর্শে উন্নত চিকিৎসার জন্য শুভকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল মঙ্গলবার (২৪ মার্চ) রাত সাড়ে ৯টার দিকে শুভ মারা যায়। এসময় রুবেল হোসেন তার ছোট ভাই শুভর হত্যাকারীদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনতে প্রশাসনের কাছে দাবি জানান। এ বিষয়ে হত্যা মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে নিহতের পরিবার জানান।

 

সুধারাম মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নবীর হোসেন মোবাইল ফোনে আজকের নোয়াখালী’কে জানান, পূর্ব বিরোধের জেরে ছাত্রলীগ কর্মী আবুল কালাম শুভ কে স্থানীয় হারুন হামলা করে। এতে শুভ গুরুতরভাবে আহত হয়। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়েছে। তবে নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে এখনো (বুধবার সন্ধ্যা পর্যন্ত) থানায় কোন অভিযোগ আসেনি। অভিযোগের ভিত্তিতে পরবর্তীতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

শেয়ার করুন