সাংবাদিক নিয়োগঃ
আজকের নোয়াখালী শিক্ষানবীশ সাংবাদিক নিয়োগ - আগ্রহীরা সিভি পাঠিয়ে দিন আমাদের মেইলঃ ajkernoakhali2019@gmail.com এ
করোনার ভয়ে এগিয়ে আসেনি কেউ, মৃত ব্যাক্তির লাশ সৎকারে এগিয়ে এলো ছাত্রলীগ

করোনার ভয়ে এগিয়ে আসেনি কেউ, মৃত ব্যাক্তির লাশ সৎকারে এগিয়ে এলো ছাত্রলীগ

.
মো. রাইহাতুল ইসলাম রাহাতআজকের নোয়াখালী:   নোয়াখালীর সদর উপজেলায় করোনার উপসর্গ নিয়ে মৃত্যূবরণ করা এক ব্যাক্তির লাশ সৎকারে এগিয়ে এলো ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা। কয়েকদিন থেকে অসুস্থ থাকা প্রমোদ মজুমদার (৪৮) নামে ওই ব্যাক্তি ওষুধের জন্য ডাক্তারের কাছে যাওয়ার পথে মারা গিয়ে রাস্তায় পড়ে থাকেন (প্রায় ৫ ঘন্টা)। খবর পেয়ে কেউ এগিয়ে না আসায় বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সদস্য মো: নজরুল ইসলাম নিপু ও স্থানীয় নেতা-কর্মীরা এসে মৃতদেহ সৎকার করেছেন।
.

শনিবার (২৩ মে) বেলা সাড়ে ১২টার সময় সদর উপজেলার ১১ নং নেয়াজপুর ইউনিয়নের গোপাল মাস্টার বাড়ির প্রমোদ মজুমদার (৪৮) বাড়ির ৩শ গজ দূরে রাস্তায় পাশে মারা গিয়ে পড়ে থাকেন। প্রতিবেশি বা স্থানীয়রা নিথর মৃতদেহটি উদ্ধার করে সৎকারের জন্য এগিয়ে আসেনি। নিহত প্রমোদ মজুমদার (৪৮) চৌমুহনির রাধামাধব আশ্রমের ক্যাশিয়ারের দ্বায়ীত্বে ছিলেন, তার এক ছেলে নৌ-সেনা সদস্য।

 

 

হৃদয়বিদারক খবরটি (ছবি সহ) দ্রুত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে, তা দেখতে পেয়ে মৃতদেহের সৎকারে এগিয়ে আসেন ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা। স্থানীয় প্রসেনজিৎ মজুমদার,  পিংসু ভৌমিক, গোলাম আলমগীর জাকারিয়া, বিক্রম মজুমদারকে সাথে নিয়ে নিহতের ছেলের মাধ্যমে ধর্মীয় রীতি অনুযায়ী শেষকৃত্য সম্পন্ন করেন তারা।

 

 

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সদস্য  মো: নজরুল ইসলাম নিপু  আজকের নোয়াখালীকে জানান, “সন্ধ্যা ৬টার সময় আমি ফেইজবুকে দেখতে পাই ৫ ঘন্টারও বেশি সময় ধরে একজন লোক মারা গিয়ে রাস্তার পাশে পড়ে রয়েছেন। আমি তাৎক্ষনিক সহযোগীদের নিয়ে গোপাল মাস্টার বাড়িতে যাই। গিয়ে দেখি নিহতের এক ছেলে ও স্ত্রী কান্নাকাটি করছেন, তখন পর্যন্ত আর কেউই এগিয়ে আসেনি তাদের পাশে। আমরা ইফতার করে নামাজ পড়ে সন্ধ্যা ৭টার সময় নিহতের ছেলের মাধ্যেমে ধর্মীয় রীতি অনুযায়ী মৃতদেহের শেষকৃত্য সম্পন্ন করেছি। মানবিক মূল্যবোধ থেকেই একাজটি আমরা করেছি।  নোয়াখালী জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও নোয়াখালী-০৪ আসনের সংসদ সদস্য জনাব একরামুল করীম চৌধুরী এবং সদর উপজলার চেয়ারম্যান জনাব সামছুদ্দিন জেহান ভাই এর নির্দেশনায় আমরা ছাত্রলীগ-যুবলীগ সর্বদা মনবতার সেবায় প্রস্তুত রয়েছি”।

 

 

এদিকে প্রাশাসনের পক্ষ থেকে ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহতের শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। যারা মৃতদেহের সৎকার কাজে স্বেচ্ছায় ‍যুক্ত হয়েছেন তাদেরকে ৪ সেট পিপিই দেয়া হয়েছে। সেগুলো পরিধান করে যথেষ্ট সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে মৃতদেহের শেষকৃত্য সম্পন্ন করা হয়েছে বলে জানা যায়।

.

 

.

 

.

আমাদের ফেইজবুক পেইজ আজকের নোয়াখালী’তে লাইক দিয়ে সাথেই থাকুন….

.

.

.

শেয়ার করুন