সাংবাদিক নিয়োগঃ
আজকের নোয়াখালী শিক্ষানবীশ সাংবাদিক নিয়োগ - আগ্রহীরা সিভি পাঠিয়ে দিন আমাদের মেইলঃ ajkernoakhali2019@gmail.com এ
সাংবাদিকের উপর হামলা ও পুলিশি হয়রানির প্রতিবাদে নোয়াখালীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ

সাংবাদিকের উপর হামলা ও পুলিশি হয়রানির প্রতিবাদে নোয়াখালীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ

লেখকঃ  মোজাম্মেল হোসেন, নোয়াখালী জেলা প্রতিনিধি-(দৈনিক করতোয়া)

একাত্তর টেলিভিশনের খুলনা ব্যুরো প্রধান ও খুলনা প্রেসক্লাবের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য রকিব উদ্দিন পান্নুর উপর খুলনা ওয়াসার ঠিকাদারের লোকজন কর্তৃক হামলা ও পুলিশি হয়রানির প্রতিবাদে নোয়াখালীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার (৭ জানুয়ারী) সকালে নোয়াখালীতে কর্মরত বিভিন্ন গণমাধ্যমের সাংবাদিকদের অংশগ্রহণে নোয়াখালী প্রেসক্লাবের সামনে এই মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।


উল্লেখ্য, গত ৫ জানুয়ারী রবিবার দুপুরে খুলনা জোড়াগেট এলাকায় খুলনা ওয়াসার কাজের গাফিলতির সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে ওয়াসার ঠিকাদার ও পুলিশী হামলার শিকার হন একাত্তর টেলিভিশনের খুলনা ব্যুরো প্রধান রকিব উদ্দিন পান্নু। এসময় হামলাকারীরা টেলিভিশনের ক্যামেরাম্যানকেও মারধর করে ও ক্যামেরা ভাঙচুর করে। এ ঘটনায় উল্টো নির্যাতিত সাংবাদিক পান্নুকে হাতকড়া পরায় ট্রাফিক ইন্সপেক্টর বাশার।

ঘটনার প্রতিবাদে ওইদিন দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে বেলা ২টা পর্যন্ত মহানগরীর জোড়া গেট এলাকায় খুলনা-যশোর মহাসড়ক অবরোধ করে প্রতিবাদ জানান সাংবাদিকরা। পরে খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক হামলাকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাসের প্রেক্ষিতে অবরোধ তুলে নেন সাংবাদিকরা। এ ঘটনায় রকিব উদ্দিন পান্নু বাদি হয়ে হামলাকারীদের বিরুদ্ধে খালিশপুর থানায় মামলা দায়ের করেন। কিন্তু এই ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোন আসামীদের গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। সোমবার সন্ধ্যা পর্যন্ত সাংবাদিক পান্নুর উপর হামলাকারীরা গ্রেফতার না হওয়ায় ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেন সারাদেশের সাংবাদিকরা। এরই প্রেক্ষিতে ৭ জানুয়ারী সকালে নোয়াখালীতে কর্মরত সাংবাদিকরা এই ঘটনার তীব্র নিন্দা ও দোষীদের গ্রেফতার এবং উপযুক্ত বিচারের দাবিতে মানবনন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেন।


মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, সাংবাদিক রকিব উদ্দিন পান্নু কে হাতকড়া পরিয়ে সারা দেশের সাংবাদিকদের অপমান ও অপদস্ত করা হয়েছে। অতি উৎসাহী পুলিশ সদস্যরা তাকে নির্যাতন করেছে।গণমাধ্যম কর্মীরা আজ সাধারণ মানুষের কথা বলতে গিয়ে নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। অবিলম্বে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান এবং অতি উৎসাহী পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য জোর দাবী জানানো হয়।

শেয়ার করুন