সাংবাদিক নিয়োগঃ
আজকের নোয়াখালী শিক্ষানবীশ সাংবাদিক নিয়োগ - আগ্রহীরা সিভি পাঠিয়ে দিন আমাদের মেইলঃ ajkernoakhali2019@gmail.com এ
ডিজিটাল সেবা গ্রামীন জনপদে পৌঁছে দিচ্ছে আবদুর রহমান।

ডিজিটাল সেবা গ্রামীন জনপদে পৌঁছে দিচ্ছে আবদুর রহমান।

নিজস্ব প্রতিবেদক।

 

গ্রামীণ জনপদে তথ্য প্রযুক্তির সেবা পৌঁছে দিতে কাজ করছে নোয়াখালী বেগমগঞ্জের আবদুর রহমান। ফলে  এই জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের সাধারণ মানুষ পাচ্ছেন তথ্যপ্রযু্ক্তির ই-সেবা। এতে সময় ও অর্থ দুটোই সাশ্রয় হচ্ছে এই অঞ্চলের মানুষের ।

নোয়াখালী জেলার বেগমগঞ্জ উপজেলার আলাইয়ারপুর ইউনিয়নের অর্ন্তগত মিয়াপুর গ্রামে প্রায় ৫০০০ হাজার মানুষ বসবাস করছে। এই এলাকায় স্বেচ্ছায় সেবা দিচ্ছেন সে নিজে। কম্পিউটার ও ইন্টারনেট ব্যবহারে অভিজ্ঞ এই ব্যাক্তি আধুনিক তথ্য-প্রযুক্তি জনগণের দৌড়গোড়ায় পৌঁছে দিচ্ছে।

এক সময় এই অঞ্চলের গ্রামীণ জনগনকে চাকরি, ভর্তি পরীক্ষার আবেদন ফরম পূরন, ফটোকপি ও ছবি উঠানো থেকে শুরু করে বিভিন্ন সেবা নিতে দূর দুরান্তে যেতে হতো। এখন সেই মানুষগুলোর একমাত্র ভরসা আবদুর রহমানের উপর। সে নিজ উদ্যোগে স্বল্প সময়ে দিচ্ছে নানা ধরনে তথ্যসেবা।

তথ্য প্রযুক্তির সরঞ্জামের স্বল্পতা থাকলেও সেবাতে যেন কমতি নেই তার। টিউশনি করে প্রথমে ডেক্সটপ, প্রিন্টার, স্ক্যানার, কিনেছিল সে। যা কয়েকবার নষ্ট হলেও নিজ খরচে পুনরায় মেরামত করে সে।

তার নিজ উদ্যেগে জন্ম নিবন্ধন, কম্পিউটার কম্পোজ ও প্রিন্ট, ফটোকপি, ই-মেইল, ইন্টারনেট, ভিডিও কলিং, চাকরির তথ্য প্রাপ্তি ও আবেদন করা, স্কুল-কলেজে ভর্তি, জমির খতিয়ান, লেমিনেটিং, পাসপোর্ট ফরম পূরণ, কম্পিউটার প্রশিক্ষণ, মোবাইল ব্যাংকিং ও স্বাস্থ্যসেবাসহ বিভিন্ন ধরনের সেবা দিয়ে যাচ্ছে।

প্রতিদিন প্রায় ১০-১৫ জন বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ সেবা নিতে আসেন। এতে সময় ও অর্থ দুটোই সাশ্রয় হচ্ছে। এর ফলে মানুষের জীবনযাত্রা অনেকটাই সহজ ও গতিশীল। তার ছোট একটি ঘরে প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা, আবার কখনো রাত ৮-৯টা পর্যন্ত কাজ করে থাকেন।

এই বিষয়ে আবদুর রহমান জানান, আমি যখন মানুষকে একটু সেবা দিতে পারি তখন নিজেকে খুব ধন্য মনে হয়।  আমার এলাকার মানুষকে আগে ১ কিলোমিটার দূরে যেতে হতো। এখন আমার কাছে এসে সহজে এবং স্বল্প সময়ে কাজ করা নিচ্ছে। এতে সময় ও শ্রম দুটোই সাশ্রয় হচ্ছে তাদের। আমার এই কাজের জন্য যদি সরকার আমাকে কিছু সাহায্য করে তাহলে গ্রামীন পর্যায়ে মানুষকে আরও বেশি সেবা প্রদান করা যাবে। তাই আমি এই বিষয়ে সরকারের সু-দৃষ্টি কামনা করছি।

এই বিষয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য নুর নবী বলেন- আমরা ওর এমন সুন্দর উদ্যেগে মুগ্ধ। আমরা যদিও অর্থনৈতিক ভাবে তাকে সাহায্য করতে পারিনি কিন্তু ওর পাশে থেকে মানসিক ভাবে সাহায্য করে যাচ্ছি। ওর কাজগুলোর সাথে ওর পাশে থাকার চেষ্টা করছি। আমি প্রশাষনের কাছে ওর এমন উদ্যেগ গুলো যেন আরও ব্যাপক ভাবে ছড়াতে পারে সেই ব্যবস্থা করার আহবান জানাচ্ছি।

সেবা প্রাপ্ত আবুল হোসেন বলেন, সরকারের সেবাকে জনগণের দোড়গোড়ায় পৌঁছে দিতে অনেক গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা পালন করছে আবদুর রহমান। সেই নিজ উদ্যোগে কাজ করে যাচ্ছে। ডিজিটাল সেবা পেতে জনসচেতনা বাড়াতে সবাইকে এগিয়ে আসা উচিত।

শেয়ার করুন