সাংবাদিক নিয়োগঃ
আজকের নোয়াখালী শিক্ষানবীশ সাংবাদিক নিয়োগ - আগ্রহীরা সিভি পাঠিয়ে দিন আমাদের মেইলঃ ajkernoakhali2019@gmail.com এ
আরো ভয়ঙ্কর হয়ে উঠছেন তাইজুল

আরো ভয়ঙ্কর হয়ে উঠছেন তাইজুল

উইকেট শিকারের পর তাইজুলের উদযাপন – সংগৃহিত
রেগিস চাকাভার পর ওয়েলিংটন মাসাকদজাকে সাজঘরে ফেরালেন তাইজুল ইসলাম। ফলে দুই দিনে দুটি করে মোট চারটি উইকেট শিকার করলেন এই অভিজ্ঞ স্পিনার। মাসাকদজাকে ৪ রানে সাজঘরে ফেরান তাইজুল। এর আগে দিনের শুরুতে চাকাভাকে ফেরান তিনি।

জিম্বাবুয়ের সংগ্রহ এখন ৭ উইকেটে ২৭১ রান। এখন ক্রিজে থাকা পিটার মুরের সঙ্গী হয়েছেন ব্রেন্ডন মাভুতা।

চাকাভা ফিরেছেন, টার্গেট এখন মুর

পিটার মুর ও রেগিস চাকাভা জুটির ভাঙন ধরিয়ে দ্বিতীয় দিনের শুভ সূচনা করলেন তাইজুল ইসলাম। এ নিয়ে তিনটি উইকেট ঝুলিতে পুরলেন এই অভিজ্ঞ স্পিনার। তবে এই জুটির রানের চাকা বাড়ানো মুর এখনো ক্রিজে বহাল তবিয়তেই আছেন। অর্ধশত পেরিয়ে গেছেন দিনের শুরুতেই। চাকাভার পর ক্রিজে এসেছেন ওয়েলিংটন মাসাকদজা।

প্রথম দিনেই প্রতিদ্বন্দ্বীতার আভাস জিম্বাবুয়ের

সিলেট টেস্টের প্রথম দিনেই লড়াইয়ের আভাস দিয়েছে সফরকারী জিম্বাবুয়ে। প্রথম দিন শেষে মাসাকাদজার দল তুলেছে ৫ উইকেটে ২৩৬ রান। প্রথম সেশনে তাইজুল ইসলামের জোড়া আঘাতের পরও বেশ কয়েকটি সম্ভাবনাময় জুটি গড়ে তুলেছিলো দলটি, অবশ্য বাংলাদেশের বোলাররা সফল ছিলেন সে সব জুটিকে বড় হতে না দিয়ে। তবে জিম্বাবুয়ে যে প্রথম ইনিংসে চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়ার পথে চলছে সেটি বলা যায়।

শনিবার সকালে সিলেটে টস জিতে ব্যাট করতে নামে সফরকারীরা। অধিনায়ক হ্যামিলটন মাসাকাদজার সাথে জুটি বেঁধে ইনিংস ওপেন করতে নামেন ব্রায়ান চ্যারি। এই জুটি যখন একটি ভালো সূচনার দিকে এগিয়ে চলছিলো তখনই আঘাত হানেন বামহাতি অফ স্পিনার তাইজুল ইসলাম। দলীয় ৩৫ রানে চ্যারিকে বোল্ড করেন তাইজুল, ব্যক্তিগত ১৩ রানে ফেরেন চ্যারি।

দ্বিতীয় উইকেটে মাসাকাদজার সাথে জুটি বেধে ক্রিজে বেশিক্ষণ স্থায়ী হতে পারেননি ব্রেন্ডন টেইলর। নাজমুল ইসলাম শান্তর ক্যাচ বানিয়ে তাকে দ্বিতীয় শিকারে পরিণত করেন তাইজুল। জিম্বাবুয়ের সংগ্রহ তখন ৪৭ রান। এরপর প্রথম সেশনের বাকি সময়টা নির্বিঘ্নেই পার করে মাসাকাদজার দল। চার নম্বরে নামা শেন উইলিয়ামসকে নিয়ে জুটি বেঁধে স্কোর বোর্ডে ৮৫ রান তুলে মধ্যাহ্ন বিরতিতে যান জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক।

এই জুটি পাল্টা প্রতিরোধের আভাস দিচ্ছিল ম্যাচে। তবে মধ্যাহ্ন বিরতির পরই মাসাকাদজাকে ফিরিয়ে সেই সম্ভাবনা উড়িয়ে দেন অভিষিক্ত পেসার আবু জায়েদ। দ্বিতীয় সেশনে ব্যাট করতে নেমে কোন রান যোগ করার আগেই ফিরে যান জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক।

এরপর সিকান্দার রাজাকে দিয়ে টেস্ট আঙিনায় উইকেটের খাতা খোলেন বামহাতি অফ স্পিনার নাজমুল ইসলাম অপু। ব্যক্তিগত ১৯ রানে ফিরে যান জিম্বাবুয়ের এই অলরাউন্ডার। জিম্বাবুয়ের রান তখন ৪ উইকেটে ১২৯। পঞ্চম উইকেটে পিটার মুর জুটি বাঁধেন উইলিয়ামসের সাথে। এই জুটি বাংলাদেশ দলের জন্য মাথা ব্যাথার কারণ হয়ে দাড়ায়। দুই শ’ পার হয় জিম্বাবুয়ের সংগ্রহ। ধীরে ধীরে সেঞ্চুরির দিকে অগ্রসর হতে থাকেন উইলিয়ামস।

তবে এই জুটি ভাঙতে বল হাতে তুলে নেন টাইগার অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। আর ব্যক্তিগত দ্বিতীয় ওভারেই তিনি সফলতা লাভ করেন। দলীয় ২০১ রানে ও ব্যক্তিগত ৮৮ রানে ফেরান উইলিয়ামসকে। ১৭৩ বলের সময়োপযোগী ইনিংসটি শেষ হয়েছে মেহেদী হাসান মিরাজের তালুবন্দী হয়ে। যাওয়ার আগে ৭২ রানের জুটি গড়েন মুরের সাথে। জিম্বাবুয়ের মিডল অর্ডারের এই স্তম্ভ ফিরে যাওয়ার পর স্বস্তি ফেরে বাংলাদেশ শিবিরে।

এরপর দিনের বাকি সময়টা অবশ্য আর কোন সফলতা পায়নি বাংলাদেশ। ষষ্ঠ উইকেটে পিটার মুর ও রেজিস চাকাভা দিনের বাকি সময়টা পার করেছেন স্কোর বোর্ডে আরো ৩৫ রান তুলে। দিন শেষে জিম্বাবুয়ের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ২৩৬ রান।

প্রথম দিন বাংলাদেশী বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে সফল ছিলেন অফ স্পিনার তাইজুল ইসলাম। ৮৬ রান খরচ করে ২ উইকেট নিয়েছেন তিনি। এছাড়া রিয়াদ, আবু জায়েদ ও নাজমুল একটি করে উইকেট নিয়েছেন।

শেয়ার করুন